চিরিরবন্দরে পাশে দাঁড়াও ও থানার সচেতনতা মুলক কর্মসুচি

চিরিরবন্দরে পাশে দাঁড়াও ও থানার সচেতনতা মুলক কর্মসুচি

স্থানীয় সংবাদ

চিরিরবন্দরে পাশে দাঁড়াও ও থানার সচেতনতা মুলক কর্মসুচি

করোনা মোকাবিলায় জনসচেতনতা সৃষ্টি করতে দিনাজপুরের চিরিরবন্দরে মঙ্গলবার অরাজনৈতিক সামাজিক উন্নয়ন কর্মকান্ড-মূলক সেচ্ছাসেবি সংগঠন ‘ পাশে দাঁড়াও ’ ও চিরিরবন্দর থানা এর যৌথ উদ্যোগে মাস্ক ও লিফলেট বিতরণ এবং মাইকিং করা হয়েছে।
দিনব্যাপী জনসচেতনতা সৃষ্টি করতে ” পাশে দাঁড়াও ” সংগঠন ও চিরিরবন্দর থানা যৌথ ভাবে উপজেলার গুরুত্বপূর্ণস্থানে পথচারী, রিকশা-ভ্যান চালকসহ দোকানী ও ক্রেতাদের মাঝে মাস্ক ও লিফলেট বিতরণ করেন সংগঠনটির একদল তরুণ-তরুণী।
এসময় “পাশে দাঁড়াও” সংগঠনের প্রধান উপদেষ্টা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান লায়লা বানু, চিরিরবন্দর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সুব্রত কুমার সরকার, চিরিরবন্দর থানার তদন্ত ওসি রইসুল ইসলাম, “পাশে দাঁড়াও” সংগঠনটির আহ্বায়ক সাংবাদিক মাহাফুজুল ইসলাম আসাদ, এস আই তাজুল, “পাশে দাঁড়াও” দক্ষিনের আহ্বায়ক তালপুকুর উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক প্রদীপ কুমার রায়, কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য গোলাম মোস্তফা নীরব, বিক্রম সরকার, আসিফ, জাফর ইকবাল, দৌলাতুন নাহার সাথী, জয় শর্মা, সোহানুর রহমান, ফয়সাল, নাঈম সহ আরো অনেকে উপস্থিত ছিলেন।
এ সময় চিরিরবন্দর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সুব্রত কুমার সরকার বলেন, “দেশব্যাপী করোনা সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় সচেতনতার বিকল্প নেই। আমরা মূলত জনগণের মাঝে সচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে কাজ করছি। অনেকেই রাস্তায় চলাচল করছে মাস্ক ছাড়া, তাদের মাঝে মাস্ক বিতরণ করছি”। তিনি উপজেলার সেচ্ছাসেবী সংগঠন “পাশে দাঁড়াও” এর ভূয়সী প্রশংসা করেন এবং সেবা মুলক কার্যক্রম চালিয়ে যাওয়ার আশা ব্যাক্ত করেন।
এ ব্যাপারে “পাশে দাঁড়াও” এর প্রধান উপদেষ্টা উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান লায়লা বানু জানান, ২০২১ সালের মার্চ মাসের শুরু থেকেই বাংলাদেশসহ বিশ্বের অন্যান্য দেশে নতুন করে করোনা ভাইরাসে সংক্রমণের হার বাড়তে থাকে। এমতাবস্থায় করোনার সংক্রমণ রোধে জনগণকে সচেতন করতেই আমাদের এ উদ্যোগ। সুতরাং সবাই সচেতন হোন, করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ করুন।
সংগঠনটির আহ্বায়ক সাংবাদিক মাহাফুজুল ইসলাম আসাদ বলেন, “করোনা ভাইরাস আগের চেয়ে দ্বিগুণ শক্তিশালি হয়ে উঠেছে। হঠাৎই করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব বেড়ে উঠেছে। কিন্তু জনসাধারণ সচেতন হচ্ছে না। অনেকের মুখেই মাস্ক নেই। মাইকিং করে সতর্ক করার পরেও মাস্ক পরার অনীহা দেখা যাচ্ছে। এখন সময় নিজে সুরক্ষিত থাকা এবং অপরকে সুরক্ষিত রাখা। সকলের উচিৎ মাস্ক পরিধান করা। আমরা নিজেরাই সচেতন না হলে আমরাই নিজেকে এবং নিজেদের পরিবারকে হুমকির মুখে ফেলবো। তাই সকলের উচিৎ সচেতন হওয়া এবং সরকারের নির্দেশনা মেনে চলা”।
উল্লেখ্য, মানব সেবায় নিরন্তর পথচলা এই প্রতিপাদ্যকে নিয়ে “পাশে দাঁড়াও” সংগঠনটি জন্মলগ্ন থেকেই অসহায় মানুষদের সাহায্য প্রদান, বিভিন্ন দূর্যোগের সময় মানুষের পাশে থেকে সহায়তা প্রদান ও সচেনতা সৃষ্টিসহ নানামুখী কাজকর্ম করে আসছে।
চিরিরবন্দরে পাশে দাঁড়াও ও থানার সচেতনতা মুলক কর্মসুচি

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *