চিরিরবন্দরে লোহার খনির সন্ধান

চিরিরবন্দরে লোহার খনির সন্ধান

স্থানীয় সংবাদ

চিরিরবন্দরে লোহার খনির সন্ধান

দিনাজপুরের চিরিরবন্দরে নতুন লোহার খনি পাওয়ার সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। বাংলাদেশ ভূ-তাত্বিক জরিপ অধিদপ্তর-জিএসবি খনির অবস্থান চিহ্নিত করেছে। উপজেলার ১০নং পুনট্রি ইউনিয়নের কেশবপুর মৌজায় এই খনির অবস্থান চিহ্নিত করা হয়েছে।

এরইমধ্যে, সম্ভাব্যতা যাচাইয়ে, কূপ খননের কাজেও নেমেছে একটি অনুসন্ধানী দল। প্রথম তিন মাস কুপ খনন করে চালানো হবে, খনিজ সম্পদের অনুসন্ধান কাজ। আর তারই শেষ মুহুর্তের প্রস্তুতি চলছে সেখানে। নতুন খনিতে লোহার কাঁচামাল আকরের পুরুত্ব অনেক বেশি।

তাই লোহার সঙ্গে তামাসহ অন্যান্য মূল্যবান সম্পদ পাওয়ার আশাও করছেন তারা। প্রয়োজনীয় যন্ত্রাংশ নিয়ে আসা হচ্ছে কেশবপুরে। সংরক্ষিত এলাকা হিসাবে সাইনবোর্ড লাগানো হয়েছে। আগামী এপ্রিল মাসের প্রথম সপ্তাহে কুপ খনন কাজ উদ্বোধনের আশা করছেন এর সাথে সংশ্লিষ্টরা।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক কর্মকর্তা জানান, বাংলাদেশ ভূ-তাত্বিক জরিপ অধিদপ্তর-জিএসবি‘র মহাপরিচালক ড. মোঃ শের আলী এই কুপ খনন কাজের উদ্বোধন করবেন। এর আগে তারা কিছুই বলতে চাননা।





এ ব্যাপারে ১০নং পুনট্রি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোঃ নুর-এ-কামাল জানান, বাংলাদেশ ভূ-তাত্বিক জরিপ অধিদপ্তরের (ভূতত্ত্ব) পরিচালক মোঃ আবদুল আজিজ পাটোয়ারী স্বাক্ষরিত জেলা প্রশাসককে দেয়া একটি চিঠির অনুলিপি পেয়েছেন তিনি।

চিঠিতে কেশবপুর এলাকায় জি ডি এইচ কুপ খনন কার্যক্রমে বহিরঙ্গনে অবস্থান কালীন সময়ে কর্মকর্তাগনকে আনুসাঙ্গীক সহায়তা, নিরাপত্তা, তথ্য ও উপাত্ত সরবরাহ, যাতায়াত,পথ প্রদর্শন প্রদানে সহযোগিতা করার অনুরোধ করা হয়েছে।

এই চিঠি পুলিশ সুপার, চিরিরবন্দর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, চিরিরবন্দর থানাকেও প্রদান করা হয়েছে। কুপ খনন কাজে দল প্রধান হিসাবে রয়েছেন উপ পরিচালক(ড্রিলিং প্রকৌশলী) মোঃ মাসুদ রানা। তার সঙ্গে রয়েছেন উপ পরিচালক(ড্রিলিং প্রকৌশলী) মোঃ নিহাজুল ইসলাম, সহকারী পরিচালক(ড্রিলিং প্রকৌশলী) মোঃ নাজমুল হোসেন খান, সহকারী পরিচালক(ড্রিলিং প্রকৌশলী) মঞ্জুর আহমেদ এলাহী, ও সহকারী পরিচালক(ড্রিলিং প্রকৌশলী) মোঃ রোকনুজ্জামান।

চিরিরবন্দরে লোহার খনির সন্ধান

Chirirbandar Facebook Page and Group

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *